দেহ ও মনের শক্তি বাড়ান কিছু নতুন উপায়ে।

বর্তমান যুগে জীবনযাত্রা এমন জটিল হয়ে গেছে যে আমরা সারাক্ষণ যেন একটি দৌড়ের ভেতর থাকি। বিরাম নেই যেন কোথাও। এই দৌড় ও প্রতিযোগিতা একটা সময় ক্লান্ত করে তোলে আমাদের। মনবোল কমিয়ে দেয়, দেহের শক্তিরও হ্রাস ঘটায়।

তবে চলতে যে হয়-ই। তাই জানা চাই মন ও শরীর সুস্থ রাখার উপায়। শরীর ও মনের শক্তি বাড়ানোর কিছু উপায় জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট টপ টেন হোম রেমেডি।

সকালের খাবার অবশ্যই খান
একটি স্বাস্থ্যকর সকালের নাশতা সারা দিনের শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। শরীরের শক্তি ধরে রাখতে এটি কখনোই বাদ দেওয়া যাবে না। সকালের নাশতা শরীরের বিপাক বাড়ায়। সকালের নাশতায় রাখতে পারেন ওটস, ফল, ডিম, দুধ ইত্যাদি।

ধ্যান করুন
প্রতিদিন ধ্যান বা যোগব্যায়াম করুন। এতে মন শিথিল থাকবে। মনোবল বাড়বে, উদ্বেগ কমতে সাহায্য হবে।

মানসিক চাপ ও রাগ নিয়ন্ত্রণ
রাগ কখনো কখনো মন্দ নয়। তবে আপনার নাক যদি সারাক্ষণ রাগে ফুলে থাকে, তাহলে এটি কিন্তু আপনার ব্যক্তিত্বে বাজে প্রভাব ফেলবে।
আসলে মানসিক চাপ, উদ্বেগ, ভয়, রাগ ইত্যাদি আবেগ আপনাকে মানসিক ও শারীরিকভাবে দুর্বল করে দেয়। তাই ধ্যান, যোগব্যায়াম, সংগীত শোনার মাধ্যমে মানসিক চাপ ও রাগ নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করুন।

ধূমপান ও মদ্যপান এড়িয়ে চলুন
ধূমপান, মদ্যপান শরীরের জন্য ভালো নয়—এ তো আর অজানা নয়। এগুলো শরীরের প্রতিটি অঙ্গকে কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। তাই দেহের শক্তি ধরে রাখতে এই অভ্যাসগুলো এড়িয়ে যান।

ম্যাগনেসিয়ামযুক্ত খাবার খান
শরীরে ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতি হলে মনোবল ও শক্তি অনেক কমে যায়। তাই শক্তি বাড়াতে ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খান। যেমন : সবুজ শাকসবজি, বাদাম, মাছ, অ্যাভাক্যাডো, কলা, কালো চকোলেট ইত্যাদি।

সক্রিয় থাকুন
ব্যায়াম করা বা সক্রিয় থাকা দেহের শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। দৌড়ানো, হাঁটা, সাঁতার কাটা ফুসফুসের সক্ষমতা বাড়ায় এবং পেশিশক্তি বাড়ায়। সপ্তাহে অন্তত পাঁচ দিন ৩০ মিনিট ব্যায়াম করুন।

পানি পান করুন
পানিশূন্যতা মাথাব্যথা, অবসন্ন ভাব তৈরি করে। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করুন। দিনে অন্তত ৮ থেকে ১২ গ্লাস পানি পান শরীরের পানির ঘাটতি অনেকটাই পূরণ করে। তবে কফি, দুধ চা, কোমল পানীয় ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। এগুলো পানিশূন্যতাকে বাড়িয়ে তোলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *