শিমুল গাছের শিকড় কি কাজে লাগে

শিমুল গাছের শিকড় কি কাজে লাগে

শিমুল গাছের শিকড় কি কাজে লাগে

শিমুল গাছ কে আমরা অনেকেই অহেতু গাছ মনে করি। শিমুল গাছের গুনাবলী আমরা অনেকেই জানি না।
জানি না শিমুল গাছ দিয়ে কি কি রোগের চিকিত্‍সা করা যায়। আজ আপনাদের শিমুল গাছের গুনাবলী নিয়ে আলোচনা করবো।

শিমুল গাছের পরিচয়: সাধারণ গ্রাম বাংলার শিমুল গাছ দেখা যায়। শিমুল গাছ বা শিমুল ফুল চেনে না এমন লোক অনেক কম আছে।
শিমুল গাছের ইংরেজি নাম Silk Cotton । এটি উচচতা ১৫থেকে ২০ মিটার। শিমুল গাছ ছোট ছোট কাটা যুক্ত। শিমুল কাছের ফুল খুবই প্রসিদ্ধ আমাদের দেশে। শিমুল গাছ থেকে তুলাও হয়।

রোগের চিকিত্‍সায় শিমুলের ব্যবহার: বিভিন্ন রোগের চিকিত্‍সায় শিমুল গাছের ব্যবহার সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হল।
ফোড়া : ফোড়া হলে শিমুল গাছের ছাল ধুয়ে বেটে, ফোড়ার উপর প্রলেপ দিলে উপকার হয়।
য়ৌবনকালে শুক্রাল্পতায় : চারা শিমুলগাছের মূল বেটে ৭ থেকে ১৯ গ্রাম নিয়ে তার সাথে একটু চিনি মিশিয়ে দু’বেলা খেলে শুক্রাল্পতা দুর হবে।

প্রৌঢ় অবস্থায় শুক্রাল্পতায়: চারা শিমুল গাছের নরম মূল চাকা-চাকা করে কেটে শুকিয়ে নিন।
এবার ভালোভাবে চুর্ণ করে ছেকে একটা শিশিতে ভরে রাখুন। সে চুর্ণ দেড় থেকে দুগ্রাম মাত্রায় নিয়ে এককাপ দুধের সাথে খাবেন। এতে প্রচুর উপকার হবে। শিমুল ফুল

প্রদরে: শিমুলের কচি মূল গাওয়া ঘিয়ে ভেজে নিন। নামাবার সময় তাতে সামান্য সৈন্ধব লবণ মিশিয়ে দিন।
এবার দেড় গ্রাম মাত্রায় নিয়ে এটা দু’বেলা খাবেন।
প্রদরে খুব উপকার হয়।
পোড়া ঘায়ে: শিমুল তুলা নিয়ে তাতে শিমুল গাছের ছাল অথ্যাত্‍ মোচরস দিয়ে ভিজিয়ে পোড়া ঘায়ে দিন, ঘা সেরে যাবে।
রক্ত আমাশয়ে: শিমুলের ছাল ‍চুর্ণ করে এক থেকে দুই গ্রাম মাত্রায় নিয়ে, ছাগল দুধের সাথে মিশিয়ে দু বেলা খাওয়ালে উপকার হবে।

শিমুল গাছের শিকড় কি কাজে লাগে

ফোড়া: ফোড়া হলে শিমুল গাছের ছাল ধুয়ে বেটে, ফোড়ার উপর প্রলেপ দিলে উপকার হয়।

যৈৗবনকালে শুক্রাল্পতায়: চারা শিমুলগাছের মূল বেটে 7 থেকে 10 গ্রাম নিয়ে তার সাথে একটু চিনি মিশিয়ে দু’বেলা খেলে শুক্রাল্পতা দুর হবে।

প্রৌঢ় অবস্থায় শুক্রাল্পতায়: চারা শিমুল গাছের নরম মূল চাকা-চাকা করে কেটে শুকিয়ে নিন।
এবার ভালোভাবে চুর্ণ করে ছেকে একটা শিশিতে ভরে রাখুন। সে চুর্ণ দেড় থেকে দুগ্রাম মাত্রায় নিয়ে এককাপ দুধের সাথে খাবেন।
এতে প্রচুর উপকার হবে।

প্রদরে: শিমুলের কচি মূল গাওয়া ঘিয়ে ভেজে নিন।
নামাবার সময় তাতে সামান্য সৈন্ধব লবণ মিশিয়ে দিন।
এবার দেড় গ্রাম মাত্রায় নিয়ে এটা দু’বেলা খাবেন। প্রদরে খুব উপকার হয়।

পোড়া ঘায়ে: শিমুল তুলা নিয়ে তাতে শিমুল গাছের ছাল অথ্যাত্‍ মোচরস দিয়ে ভিজিয়ে পোড়া ঘায়ে দিন, ঘা সেরে যাবে।

রক্ত আমাশয়ে: শিমুলের ছাল ‍চুর্ণ করে এক থেকে দুই গ্রাম মাত্রায় নিয়ে,
ছাগল দুধের সাথে মিশিয়ে দু বেলা খাওয়ালে উপকার হবে।

Related posts

Leave a Comment