ইলেকট্রিক ক খ গ লাইসেন্স কি এবং কিভাবে পাবো জানার উপায় abc License Electric Board

আধুনিক সভ্যতার জন্য বিদ্যুতের প্রয়োজন অপরিহার্য। এই বিদ্যুৎ ব্যবহারের জন্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের গুরুত্বও অনেক। কেননা প্রতি বছর বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনার কারণে সম্পদসহ বহু জীবনহানি হয়। আর সেইকারণেই বিদ্যুৎ উৎপাদন, সঞ্চালন, বিতরণ, সরবরাহ ও ব্যবহারের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ১৯১০সালে ইলেকট্রিসিটি দপ্তর প্রণয়ন হয়। দপ্তরটি বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিদ্যুৎবিভাগ এর নিয়ন্ত্রণাধীন। নিরাপত্তার ক্ষেত্রে উচ্চ ও মধ্যম চাপের /ক খ গ লাইসেন্স বৈদ্যুতিক সংযোগ অনুমোদন, বৈদ্যুতিক কারিগরী, সুপারভাইজার সনদও ঠিকাদারী লাইসেন্স ইস্যু দপ্তরটির মূল কাজ।

ক খ গ বা ABC লাইসেন্স কি

টি মূলত ইলেকট্রিক্যাল সুপারভাইজার Licence. একজন Diploma বা B.Sc Engineer চাইলে এই Licence-এর মালিক হতে পারবেন। সাধারণত Diploma Engineer-দের ৫ থেকে ১০ বছরের চাকরির Experience লাগে । আর B.Sc ইঞ্জিনিয়ারদের মোটামুটি ২ বছরের অভিজ্ঞতা হলেই হয় । এই Licence থাকলে আপনি (Electrical Engineer) ইলেক্ট্রিক্যাল-এর যেকোন রেঞ্জ এর কাজ করতে পারবেন। একথায় আপনি সুপারভাইজার-এর যেকোন কাজ করতে পারবেন।

ক খ গ লাইসেন্সের প্রকার

abc লাইসেন্স তিনভাবে দেওয়া হয়। যথা-

(ক) A-বিভাগ অর্থাৎ হাই-রেঞ্জ (440 V থেকে যেকোন উচ্চ ভোল্টেজের কাজ)
(খ) B-বিভাগ অর্থাৎ মধ্যম-রেঞ্জ (220V to 440 voltage এর কাজ)
(গ) C-বিভাগ অর্থাৎ লো-রেঞ্জ (সর্বোচ্চ 220 Voltage এর কাজ)

আপনি চাইলে উপরের তিন বিভাগের জন্য আলাদা আলাদা আবেদন করতে পারেন । আবার সব বিভাগের জন্য একসাথে আবেদন করতে পারেন সেটা আপনার কাছে।

সুপারভাইজার লাইসেন্স কিভাবে পাবেন

বৈদ্যুতিক কারিগরী, সুপারভাইজার সনদ ও ঠিকদারী লাইসেন্স ইস্যু অধিদপ্তর  http://www.eacei.gov.bd ওয়েভ সাইটে  এই Licence প্রদান করে থাকে । বছরে দু’বার ( ইলেকট্রিশিয়ান ২ বার – মার্চ এবং অক্টোবর।সুপারভাইজার ও ঠিকাদার ২ বার – জুন এবং ডিসেম্বর ) এই লাইসেন্স প্রদান করা হয়। আরো বিস্তারিত তথ্য আপনি উক্ত ওয়েভ সাইট থেকে জানতে পারবেন।

  1. বৈদ্যুতিক ঠিকাদারী লাইসেন্স-এর আবেদনের ফরম এখানে
  2. বৈদ্যুতিক সুপারভাইজার লাইসেন্স-এর আবেদনের ফরমঃ এখানে
  3. বৈদ্যুতিক কারিগরি পারমিট / ইলেকট্রিক লাইসেন্স ফরমঃএখানে

আবেদন যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা

(ক) আপনি যদি বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার (ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স) হয়ে থাকেন তবে আপনার উক্ত কাজের (যে বিভাগের জন্য আবেদন করবেন) উপর ১ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। (খ) আবার আপনি যদি বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার (মেকানিক্যাল, মেরিন ও নেভাল, আর্কিটেকচার ও কম্পিউটার) হয়ে থাকেন তবে আপনার উক্ত কাজের (যে বিভাগের জন্য আবেদন করবেন) উপর ৩ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। আবেদন ফরম এই ঠিকানায় পাবেন http://www.eacei.gov.bd/images/stories/s_c_form.pdf।

কোন পরিক্ষা দিতে হয় কি?

হ্যা পরিক্ষা দিতে হয়। লাইসেন্স পেতে হলে, আপনাকে ভাইবা পরিক্ষা দিতে হবে । আপনি আবেদন করার ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যে, আপনার ঠিকানায় ভাইবা অ্যাডমিট কার্ড চলে আসবে । নির্দিষ্ট তারিখে বৈদ্যুতিক সুপারভাইজার সনদ ও ঠিকাদারী লাইসেন্স ইস্যু দপ্তরে আপনার ভাইবা পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরিক্ষার ফলাফল ঐদিন বা পরের দিন সকালের মধ্যে ওদের office বা wesite-এ result publish করে দেই । আপনি কোন Category-এর Licence পেয়েছেন, তা আপনার নামের পাশে দেয়া থাকবে।

আবেদন করার জন্য বিশেষ বিজ্ঞপ্তি

১। বৈদ্যুতিক ঠিকাদারী লাইসেন্স ফি শ্রেণি অনুযায়ী নিম্নবর্ণিত হারে সরকারি ট্রেজারীতে অথবা বাংলাদেশ ব্যাংকে অবশ্যই ১.৫.৬.৩.0.৮.৫.৪ খাতে চালানের মাধ্যমে জমা করিতে হইবে। বৈদ্যুতিক
ঠিকাদারী লাইসেন্স জারি/পূনবৈধকরণের যন্ত্রপাতি টেস্টিং ফিস প্রতি শ্রেণির জন্য ৪০০/(চারশত) টাকা হারে আবেদনকালীন সময়ে অত্র বাের্ডে নগদ প্রদান করিতে হইবে।

ক খ গ লাইসেন্স

২। আবেদনকারী নিজে বৈধ বৈদ্যুতিক সুপারভাইজার সনদপ্রাপ্ত সুপারভাইজার না হইলে প্রতিষ্ঠানের জন্য একজন সার্বক্ষণিক বৈধ বৈদ্যুতিক সুপারভাইজার সনদপ্রাপ্ত সুপারভাইজার নিয়ােগ করিতে হইবে।

৩। আবেদনকারী প্রত্যেক বৈদ্যুতিক ঠিকাদার/ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নিকট নিম্নে বর্ণিত শ্রেণি অনুযায়ী নির্দিষ্ট করা টেষ্টিং ইনস্ট্রমেন্টস ও টুলস থাকিতে হইবে। প্রতিটি ইনষ্ট্রমেন্টস ও টুলস এর গায়ে প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা খােদাই করিতে
এবং রাবার দস্তানায় অমুছনীয় কালি / রং দ্বারা লিখিতে হইবে।  ক খ গ লাইসেন্স

৪। আবেদনকারীকে অবশ্যই “ডি” ফরম পূরণ করিতে হইবে।

৫। আবেদনপত্রের সাথে পূরণকৃত “ডি” ফরম; নিয়ােগকৃত বৈদ্যুতিক সুপারভাইজারের নিয়ােগ ও যােগদান পত্র সুপারভাইজার কর্তৃক “অন্য কোথাও চাকুরীতে নিয়ােজিত নাই” এই মর্মে একটি ঘােষণাপত্র; মূল সুপারভাইজার সনদপত্র; জমাকৃত
আবেদন ফিসের চালানের মূলকপি; টেষ্টিং ইনমেন্টস ও টুলস্ এর ক্রয় রশিদ এবং ট্রেড লাইসেন্স এর সত্যায়িত ফটোষ্ট্যাট কপি অবশ্যই সংযুক্ত করিয়া দাখিল করিতে হইবে।

৬। আবেদনকারী প্রতিষ্ঠানের নিয়ােগকৃত বৈদ্যুতিক কারিগরদের শতকরা ৫০ ভাগ বিদ্যুৎ লাইসেন্সিং বাের্ডের বৈদ্যুতিক কারিগরি পারমিট প্রাপ্ত হইতে হইবে।

৭। বাের্ড কর্তৃক নির্ধারিত তারিখে আবেদনকারী অথবা তাহার এজেন্টকে নিয়ােগকৃত বৈদ্যুতিক সুপারভাইজার এবং টেষ্টিং ইনমেন্টস ও টুলসহ বাের্ডের সম্মুখে হাজির হইতে হইবে।

৮। অসমাপ্ত আবেদনপত্র গ্রহণযােগ্য নহে।

এই লাইসেন্স থাকলে আপনার লাভ কি ?

এই লাইসেন্স থাকলে আপনার অনেক লাভ আপনি চাইলে যেকোন ঠিকাদারী ব্যবসা করতে পারবেন (Electrical, Mechanical, Civil, Chemicals, Computer) । তাছাড়া নিজে ঠিকাদারী ব্যবসা করতে না পারলেও আপনি লাইসেন্স ভাড়ায় দিতে পারবেন ।

পরিক্ষার জন্য যে সকল বিষয় পড়তে হবে ?
  1. Electrical House Wiring
  2. Motor
  3. Sub Station
  4. Switch Gear
  5. Circuit Breaker
  6. Earth Tester
  7. Generator
  8. Transformar
  9. Transmission & Distribution -এর Basic Question
  10. Relay
  11. Power Factor Meter
  12. Safety Devices
  13. Electrical Line -এ use হয়, এমন instruments (Megar Meter, Power Factor Meter, Clip-on Meter etc)
  14. Bangladesh-এর Current Power সম্পর্কে জানতে হবে।

আরো বিস্তারিত তথ্যের জন্য আপনি নিম্নোক্ত উপায়ে যোগাযোগ করতে পারেন।

২৪, তোপখানা রোড, জ্যোৎস্না কমপে­ক্স,
৫ম ও ৬ষ্ট তলা, ঢাকা-১০০০। বৈদ্যুতিক উপদেষ্টা ও প্রধান বিদ্যুৎ পরিদর্শকঃ ০২-৪৭১১০৪০৬
বিদ্যুৎ লাইসেন্স বোর্ডঃ ০২-৪৭১১০৪০৭
জ্বালানী নিরীক্ষণ সেলঃ ০২-৯৫৬৬৫৬৪
ফ্যাক্সঃ ০২-৯৫৫০৪৮৬

 

 

 

 

Related posts

Leave a Comment