এফওবি গন্তব্যস্থল এবং এফওবি জাহাজিস্থল / পরিবহন খরচের বিভিন্ন শর্ত

এফওবি গন্তব্যস্থল এবং এফওবি জাহাজিস্থল / পরিবহন খরচের বিভিন্ন শর্ত (FOB-Destination and FOB-Shipping Point)

মজুদ পণ্যের হিসাবরক্ষণের উপর ভিত্তি করে পরিবহন ব্যয়ের হিসাবরক্ষণ করা হয়।
কালান্তিক মজুদ প্রণালিতে (Periodic Inventory System) মজুদ পণ্যের হিসাব রাখা হলে এবং ক্রেতা পণ্যের পরিবহন ব্যয় পরিশোধ করলে ক্রেতার বহিতে Carriage in/Transportation in ডেবিট হবে।
তবে নিতা মজুদ প্রণালিতে (Perpetual Inventory System) মজুদ পণ্যের হিসাব রাখা হলে ক্রেতার পরিবহন ব্যয়ের জন্য Merchandise Inventory ডেবিট হবে।
পরিবহন ব্যয়ের শর্ত সাধারণ দুই প্রকার। যথা: ১. FOB Shipping Point এবং ২. FOB Destination.

নিচে এ সম্পর্কে আলোচনা করা হলো:

“আর পড়ুনঃ” Comprehensive Income

1. FOB-Shipping Point: FOB বা Free On Board- এর অর্থ হচ্ছে ভাড়া ফ্রি এবং Shipping Point হচ্ছে জাহাজ ছাড়ার স্থান।
সুতরাং FOB Shipping Point বলতে বুঝায় ক্রেতা যেখান থেকে তার পণ্য পরিবহনে উঠাবে সেখান পর্যন্ত তার পরিবহন ভাড়া ফ্রি।
অর্থাৎ এ শর্তে পণ্য ক্রয় করা হলে বিক্রেতা কেবল পণ্যগুলো জাহাজে বা রেলে বা ট্রাকে উঠানোর পূর্ব পর্যন্ত পরিবহন খরচ বহন করে।
পরবর্তীতে জাহাজ ভাড়া, রেল ভাড়া বা ট্রাক ভাড়া ক্রেতাকেই বহন করতে হবে।
সুতরাং এ শর্তসাপেক্ষে এক কথায় বলা যায় যে, বিক্রেতা পণ্য জাহাজে বা রেলে বা যেকোনো পরিবহনে তুলে দিবে এবং ক্রেতার নিকট তা পৌছানোর পর ক্রেতা উক্ত পণ্যের পরিবহন খরচ পরিশোধ করে পণ্য খালাস করে নিবে।

“আর পড়ুনঃ” (CAMELS Rating) রেটিং

আবার FOB-Shipping Point শর্ত থাকার পরও যদি বিক্রেতা পণ্যের পরিবহন ব্যয় পরিশোধ করে তাহলে এক্ষেত্রে মনে করতে হবে যে, সাময়িকভাবে বিক্রেতা পরিবহন খরচ পরিশোধ করলেও চূড়ান্তভাবে তা ক্রেতার কাছ থেকে আদায় করে নিবে।

পরিবহন খরচের বিভিন্ন শর্ত

২. FOB Destination : Destination অর্থ হচ্ছে গন্তব্যস্থল। সুতরাং FOB Destination বলতে বুঝায় গন্তব্যস্থল। পর্যন্ত ক্রেতার পরিবহন ভাড়া ফ্রি।
এ শর্তে পণ্য ক্রয় করা হলে বিক্রেতা পণ্য বিক্রয় করে তা নিজ খরচে ক্রেতার নির্দেশিত স্থানে পৌঁছে দিবেন।
এক্ষেত্রে ক্রেতাকে কোনো পরিবহন খরচ পরিশোধ করতে হবে না।

আবার FOB-Destination শর্ত থাকার পরও যদি ক্রেতা পণ্যের পরিবহন ব্যয় পরিশোধ করে তবে মনে করতে হবে।
নির্দেশিত স্থানে পৌঁছে দিবেন। এক্ষেত্রে ক্রেতাকে কোনো পরিবহন খরচ পরিশোধ করতে হবে না।

পরিশেষে বলা যায় যে, পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের পর এর পরিবহন খরচ কে বহন করবে, তা নির্ধারণ করা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
এক্ষেত্রে ক্রয়-বিক্রয় চুক্তিতে স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকতে হয়। ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ের জন্যই পরিবহন খরচ একটি গুরুত্বপূর্ণ দফা।
তাই এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট শর্ত থাকতে হয়। অন্যথায় অহেতুক জটিলতার সৃষ্টি হয়।

Related posts